অনলাইন ইনকাম (নতুনদের জন্যে) এর গোপন টিপস “The Hidden Tips Of Online Earnings”

[X]

আজ অনলাইনে আয় করার খুব গোপন কয়েকটা টিপস আপনাদের সবার সাথে শেয়ার করবো। যেগুলো সবাই সবার সাথে শেয়ার করেনা, কিন্তু আমি শেয়ার করবো। কারণ আমি নিজেও এই জায়গাতে এসে আটকে ছিলাম।

 

বিশেষ করে নতুন যারা ইউটিউবে চেনেল খুলেছেন, এডসেন্স ও আছে, আবার ভিডিও গুলো মনিটাইজ করা ও আছে, ভিডিওতে হাজার হাজার ভিউ ও হচ্ছে, কিন্তু আসল কাজ হচ্ছেনা। আসল কাজটা হচ্ছে ইনকাম! সেটা যদি না হয় তাহলে এতো কস্ট করে একটা চেনেল প্রতিস্টিত করলেন, এডসেন্স ও পাইলেন, কিন্তু ইনকাম পাইলেননা, এভাবে কি চলে!

 

আপনিই বলুন?

আপনার ব্লগ বা সাইট ও অনেক কস্ট করে দিনের পর দিন, রাতের পর রাত, মাসের পর মাস, খেয়ে না খেয়ে, ঘুমিয়ে না ঘুমিয়ে, দুই চোখের বারোটা বাজিয়ে, নিজ পরিবারের বকা ঝকা খেয়ে, চেনেল বা ব্লগ প্রতিস্টিত করলেন, এডসেন্স ও পাইলেন আবার ভিজিটর ও ভালো, কিন্তু ইনকাম ভালো না। এই দুইটা বিষয়ের যেকোনো একটায় ও যদি আপনি সমস্যায় পরেন, তাহলে আমি বলবো আজকে আপনি সঠিক জায়গা মতো এসেছেন! আজকের পর থেকে আর আপনার সব দুশ্চিন্তা আমি বিদায় করে ফেলবো! আশা করি টিউনটি শেষ না হওয়া পর্যন্ত সবাই সাথে থাকবেন। প্রথমেই শুরু করি ইউটিউব দিয়ে ইনকামের গোপন টিপস! ধরে নিলাম ইউটিউবে আপনার এক বা একাদিক চেনেল আছে, এডসেন্স ও আছে। এখন ইনকাম কিভাবে বাড়াবেন সেটা মন দিয়ে বুঝার চেষ্টা করুন!

গুগল এডওয়ার্ড: অনেকেই হয়তো জানেন গুগল এডওয়ার্ড নামে গুগলের একটা সাইট আছে। কি ওয়ার্ড রিসার্চ করার জন্যে। আরে ভাই লাফ দিয়ে উঠলেন কেনো? আপনি এই সাইটের সাথে পরিচিত সেটাতো আমিও জানি, আমি কি বলি আগে সেটা শুনেন!! আমি যেটা বলতে চাই সেটা হচ্ছে আপনার ইউটিউব চেনেলের জন্যে এডওয়ার্ডে না গিয়ে, আপনি টিউব বাডিতে যান। আমি মনে করি যাদের ব্লগ বা সাইট আছে এডওয়ার্ড তাদের জন্যে। আর আপনার ইউটিউব চেনেলের জন্যে এডওয়ার্ডে গিয়ে খুব বেশি একটা সুবিধা করতে পারবেন বলে আমার মনে হয় না। তবে যারা এডভান্স ইউজার তাদের কথা আলাদা !

টিউব বাডি: টিউব বাডিই আপনার চেনেলের জন্যে বেস্ট। টিউব বাডি কি? টিউব বাডি হচ্ছে একটা ইউটিউব ম্যানেজমেন্ট টুল এটা দিয়ে আপনি সহজেই আপনার চেনেলের টাইটেল ও ট্যাগ কে বোস্ট করতে পারবেন। আরো সহজ করে বলতে গেলে আপনার চেনেলের ইনকাম জিরো থেকে হিরো করতে পারবেন। আপনি যদি নতুন ইউজারও হন সমস্যা নেই। আচ্ছা টিউব বাডিতে কিভাবে কি করবেন সেটা জানতে হলে সোহাগ ভাইয়ের এই ভিডিওটি দেখতে পারেন। যদিও ভিডিওতে খুব কমই আলোচনা করা হয়েছে তার পরেও এটি আপনার খুব কাজে দেবে।

শুধু টিউব বাডিতে গেলেই আপনার চেনেল চলবে না! কি আকাশ ভেংগে মাথায় পরলো নাকি? না লেজ গুটিয়ে পালাইবেন। আগেই বলছিলাম না আমি আছি দুশ্চিন্তা করার কোন কারণ নাই। কাজের কথায় যাই। ফেসবুক তো সবারই আছে, ফ্রেন্ড ও আছে কিন্তু বাঙালি ফ্রেন্ড, যার দাম নাই, যেমন আমি বাঙালি। আজ থেকেই মাথায় গামছা বেধে ফেসবুকে বাঙালি নয়, ইউরোপিয় ফ্রেণ্ড এড করুন। সেক্ষেত্রে আপনি ফেক ইউরোপীয় নাম, ও ফেক ইউরোপীয় এড্রেস, এবং ফেক ইউরোপীয় ছবি প্রোফাইলে ব্যবহার করবেন। যাতে সাধারন কেউ বুঝতে না পারে আপনি বাঙালি।

লাইক -টিউমেন্ট ঠিকমতো চালিয়ে যাবেন। আইডি ক’টা করবেন সেটা আপনার ব্যাপার তবে আমি বলবো ৩ টা আইডি করার জন্যে। প্রত্যেক আইডিতে ৫০০০ পাচ হাজার ফ্রেন্ড লোড না হওয়া পর্যন্ত থামবেননা। যতটুকু পারেন ইংরেজিতে টিউন দিবেন। ভুলেও বাংলা স্ট্যাটাস এখানে লিখতে যাবেন না মনে রাখবেন, আপনি এখানে একজন ইউরোপীয়।

বাঙালি সত্তা এই জায়গায় বিসর্জন দেবার জন্যে আমি আন্তরিক ভাবে দুঃখিত সবার কাছে। অথবা ইংলিশ কোন নিউজ পেপারের তরতাজা নিউজ কালেক্ট করে এখানে শেয়ার করবেন। ব্যাস এখান থেকেই পেয়ে যাবেন ইউরোপিয় ভিউয়ার আর ইউরোপিয় ভিউয়ার মানে কি তা আর বলে দিতে হবেনা নিশ্চই। শুধুই ডলার আর ডলার তবে লাইক টিউমেন্টের কাজ ঠিকমতো চালিয়ে যাবেন কিন্তু! নাহলে আপনার দেয়া টিউন তাদের কাছে পৌছবেনা। একিই পদ্ধতিতে গুগল প্লাস ও টুইটারে টিউন দিবেন।
ইউরোপীয় ফ্রেন্ড কোথায় পাবো? কিভাবে পাবো?

আগে দেখুন আপনার ইউটিউব চেনেলটি কোন বিষয়ের মনে করলাম আপনার চেনেলটি এন্ড্রয়েড সফটওয়্যার বিষয়ক, সেক্ষেত্রে আপনি এর সাথে রিলেটেড কোন কিওয়ার্ড লিখে ফেসবুকে পেজ সার্চ দিবেন। অথবা গুগলে গিয়ে USA বা UK Facebook Fan Page List লিখে সার্চ দিবেন। এখান থেকে আপনার চেনেলের সাথে রিলেটেড পেজটি নির্বাচন করুন, এবার তাদের পেজে গিয়ে একটা লাইক দিয়ে দিবেন, আর তাদের পেজের ফ্যান লিস্ট এ গিয়ে আপনি একে একে ফ্রেন্ড রিকুয়েস্ট পাঠাবেন। সেক্ষেত্রে অবশ্যই ফেসবুকের নিয়ম মেনে রিকুয়েস্ট পাঠাবেন। তার পরেও যদি না পান তবে নরমালি ফেচবুক সার্চে গিয়ে GERMAN, USA, UK এই কান্ট্রি গুলোর ফ্রেন্ডদের এড করুন!

টাইটেল: এবার আসল কাজ!! ‘টাইটেল’ প্রথমে আকর্ষনীয় ২টা কিওয়ার্ড ভিডিওর প্রথম টাইটেলের জন্যে নির্বাচন করুন। তার পরে আপনার ভিডিওর সম্পূর্ন টাইটেল দিন। যেমন- best free video editing software for android এখানে best free এই ২ টা কিওয়ার্ড হচ্ছে আকর্ষনীয়। বাকী গুলো ভিডিও রিলেটেড। আশা করি বুঝতে পেরেছেন কিভাবে টাইটেল দেবেন।

ট্যাগ: তারপরে আসে ‘ট্যাগ’ এটা কিন্তু আপনার ভিডিওর জন্যে খুব বেশী গুরুত্তপূর্ণ। টিউব বাডির ট্যাগ এক্সপ্লোরারে ক্লিক করে সার্চ ঘরে আপনার ভিডিও রিলেটেড যেকোনো কিওয়ার্ড টাইপ করুন সার্চ রেসাল্ট যদি good অথবা very good দেখায় আপনি সেটা নির্বাচন করবেন। আর যদি Bad অথবা very bad দেখায় তবে সেটা পরিহার করে নতুন করে সার্চ করুন। ছবিতে দেখুন…।

ডেস্ক্রিপশন: যতটুকু পারেন ডেস্ক্রিপশন বড় করে লিখার চেষ্টা করবেন। সাধারনত ৩০০ শব্দের ডেস্ক্রিপশন গুলোকে ইউটিউব খুব প্রাধান্য দিয়ে থাকে। ডেস্ক্রিপশনে ৩/৪ বার আপলোড করা ভিডিওর রিলেটেড কিওয়ার্ড উল্যেখ করা ভালো।
আপলোড করার পর উপরে উল্যেখিত প্রত্যেক টা ফেসবুক আইডিতে এবং গুগল প্লাস ও টুইটারে এই ভিডিও শেয়ার করবেন। তবে আমার মতে শেয়ার না করে থাম্বনেল ইমেজ, টাইটেল এবং লিংক দিয়ে সরাসরি আপলোড করা ভালো। এতে করে আপনার ভিডিওর ভিউ শেয়ার থেকে কয়েকগুন বেশি বাড়বে। কারণ শেয়ার থেকে আপলোড করা ছবিকে ফেসবুক প্রাধান্য দেয় অনেক বেশী।
অনেকেই আমার এই কথার সাথে দ্বিমত পোষন করতে পারেন। তাদের জন্যে নিচে প্রমাণ দিলাম।
কাস্টম থাম্বনেল: আমার মতে সব থেকে বেশি ভিউ আসে কাস্টম থাম্বনেল থেকে। এতো কস্ট করে একটা ভিডিও তৈরী করলেন আর থাম্বলেনটা যেনো তেনো দিয়ে দিলেন। এটাতো হলোনা ভাই! চেষ্টা করুন একটু সময় বেশী দিয়ে কাস্টম থাম্বনেল ডিজাইন করার। থাম্বনেল যেনো অবশ্যই আপনার ভিডিওর সাথে সম্পর্কযুক্ত থাকে, সেদিকে খেয়াল রাখবেন।
ভিডিও আপলোড করার সঠিক সময়: আপনি হয়তো জানেননা কোন টাইমে আপনার ভিডিওটি আপলোড করলে স্বাভাবিকের চেয়ে দ্বিগুন ভিউ বাড়বে। হ্যা এখন বলবো কিভাবে সঠিক সময়ে ভিডিওটি আপলোড করে দ্বিগুন ভিউ বাড়াবেন! টিউব বাডিতে ক্লিক করুন নিচের ছবির মতো
একেবারে নিচের দিকে পাবেন Best Time To Publish এখানে গেলেই জানতে পারবেন কোন টাইমে আপলোড করলে ভিউ সবথেকে বেশি হয়।
নিচের ছবিটা দেখুন।

সেই টাইম এবং ডে ফলো করে আপনার ভিডিওটি আপলোড করুন।

ইউটিউব সম্পর্কে কমন কিছু প্রশ্ন? এবং তার উত্তর: জানতে (জাফরান বিন অর্ক)  ভাইয়ের এই টিউনটা দেখতে পারেন।
ব্লগ বা সাইটের ইনকাম কিভাবে বাড়াবেন: এবার আসি আপনার ব্লগ বা সাইটের ইনকাম কিভাবে বাড়াবেন! গুগল এডওয়ার্ড! এটা কিন্তু ভাই বিশাল এক সাগরের মতো, যার কুল কিনারা পেতে হলে আপনাকে দিন রাত অনেক ঘাটাঘাটি করতে হবে, তার পরেও সংক্ষেপে কিছু কথা বলি,এখানে গিয়ে আপনি বেশি বেশি করে কিওয়ার্ড রিসার্চ করুন। প্রথমে গুগল এডওয়ার্ড গিয়ে সাইন ইন করে Tools keyword planner এ ক্লিক করে উপরের সার্চবক্সে আপনার কিওয়ার্ড টাইপ করুন, তারপর নিচের দিকে গিয়ে Get ideas এ ক্লিক করে এখান থেকে ভালো কিওয়ার্ড গুলো বেছে নিবেন, ভালো বলতে Avg Monthly Search যেগুলো বেশি হয় এবং Competition: Low/Medium এবং Suggested Bid যেগুলো বেশি ডলারের থাকে সেগুলো সিলেক্ট করবেন। গুগল এডওয়ার্ড কিন্তু খুব বড় একটা বিষয় এই সংক্ষিপ্ত টিউনে সেটা সম্পূর্ন বুঝানো সম্ভব নয়, আপনাদের সাড়া পেলে খুব শিঘ্রই এটা নিয়ে ভিডিও টিউটোরিয়াল তৈরী করবো!

উপরে ফেসবুক নিয়ে যে আলোচনা করেছি সেটিও আপনি আপনার ব্লগ বা সাইটের জন্যে কাজে লাগাতে পারেন। তবে আপনার ব্লগের বা সাইটের জন্যে আরো একটা টিপস হলো। (এডফ্লাই) এখান থেকে আপনি টার্গেট করে যেকোনো দেশের ভিসিটর অতি অল্প খরচে মানে কিছু টাকার বিনিময়ে। আপনার সাইটে নিয়ে আসতে পারবেন। বিস্তারিত তাদের সাইটে গিয়ে সাইন আপ করলেই বুঝতে পারবেন।

ব্লগিং নিয়ে আপনার কোনো প্রশ্ন? থাকলে এই গ্রুপে জইন করতে পারেন।  এখানে রুবেল এস বি এস ভাই, সহ আরো অনেকে গুরুরা আছেন। যারা নিঃসার্থ ভাবে নিজেদের অনলাইন ইনকামের  সকল গোপন টিপস এই গ্রুপে শেয়ার করেন।

ব্লগিং নিয়ে আপনার কোনো প্রশ্ন? থাকলে এই গ্রুপে জইন করতে পারেন। এখানে রুবেল এস বি এস ভাই, সহ আরো অনেকে গুরুরা আছেন। যারা নিঃসার্থ ভাবে নিজেদের অনলাইন ইনকামের সকল গোপন টিপস এই গ্রুপে শেয়ার করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *